কোম্পানির প্রবর্তক কাকে বলে? প্রবর্তকের শ্রেণিবিভাগ?

কোম্পানির প্রবর্তক কাকে বলে :-

কোম্পানি গঠনের লক্ষ্যে যে সকল ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গ উদ্যোগ গ্রহণ করেন তাদেরকেই কোম্পানির উদ্যোক্তা বা প্রবর্তক বলে।

প্রবর্তক কোম্পানি স্থাপনের পরিকল্পনা প্রণয়ন করেন এবং কোম্পানির কার্য শুরু হওয়া অবধি যাবতীয় কার্যাবলি সম্পাদন করে থাকেন।

প্রবর্তক এর দুটো জনপ্রিয় সংজ্ঞা নিচে তুলে ধরা হলো।

বিচারপতি করুবার্ণ এর অভিমত অনুযায়ী, "প্রবর্তক এমন একজন ব্যক্তি যিনি একটি প্রকল্প বাস্তাবায়নের প্রসঙ্গে কোম্পানি গঠন করেন এবং এটা পরিচালনা করেন ও ঐ উদ্দেশ্য সম্পাদনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।


স্যার ফ্রান্সিস পামার এর সংজ্ঞা অনুসারে, “যে ব্যক্তি কোম্পানির সুযোগ সুবিধা, মুনাফা অর্জনের সম্ভাবনা ইত্যাদি বিষয় চিন্তা করে একটি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা প্রস্তুত করে, প্রস্তাবিত কোম্পানির স্মারকলিপি, পরিমেল নিয়মাবলি ও অন্যান্য দলিলপত্র প্রণয়ন করে নিবন্ধকের নিকট নিবন্ধনের জন্য আবেদন করে, প্রাথমিক বায় বহন করে, নিবন্ধন পূর্ব চুষিসমূহের শর্তাবলি নির্ধারণ করে, প্রাথমিক পরিচালক নির্বাচন করে বিবরণপত্র প্রণয়ন ও প্রচার করে এবং মূলধন সংগ্রহ ইত্যাদি কার্য করে তাকে প্রবর্তক বলে।"

সুতরাং বলা যায়, কোম্পানির প্রবর্তক এমন ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গ যিনি বা যারা স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে কোনো কোম্পানি গঠনের পরিকল্পনা করেন এবং উক্ত পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় কার্য পদ্ধতি গ্রহণে সচেষ্ট হন।
কোম্পানির প্রবর্তক কাকে বলে

প্রবর্তকের শ্রেণিবিভাগ :-

প্রবর্তক হচ্ছে এমন ধরনের ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গ যারা কোম্পানি গঠনে উদ্যোগ গ্রহণ করেন এবং কোম্পানির কার্য শুরু হওয়া অবধি প্রয়োজনীয় সকল কর্ম সম্পাদন করে থাকেন। উদ্যোক্তাদের প্রকৃতি ও বৈশিষ্ট্যের ভিত্তিতে প্রবর্তককে কয়েকটি শ্রেণিতে বিভক্ত করা যায়। এ শ্রেণিবিন্যাস নিয়ে আলোচিত হলো।

১. পেশাদার প্রবর্তক (Professional promoter) :-

যে প্রবর্তক নির্দিষ্ট পারিশ্রমিকের বিনিময়ে কোম্পানি গঠনের দায়িত্ব গ্রহণ করে তাকে পেশাদার প্রবর্তক বলে।


এরূপ প্রবর্তক কোম্পানি গঠনের কাজকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করে থাকে। এ শ্রেণির প্রবর্তকগণ দক্ষ, অভিজ্ঞ হয়ে থাকে।

২. সাধারণ প্রবর্তক (Ordinary promoter) :-

কতিপয় ব্যবসায়ী ও শিল্পপতি ব্যক্তিগত উদ্যোগে যৌথভাবে কোনো কোম্পানি গঠন করলে তাদেরকে সাধারণ প্রবর্তক বলে।

কোম্পানি মালিক ও পরিচালক এ শ্রেণির প্রবর্তক। সব দেশের অধিকাংশ কোম্পানি এ ধরনের প্রবর্তকদের দ্বারা গঠিত।

৩. সাময়িক প্রবর্তক (Occasional promoter) :-

সাময়িকভাবে বা কোনো বিশেষ কারণবশত যখন কতিপয় ব্যক্তি বা ব্যবসায়ী কোম্পানি প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণ করে তখন তাদেরকে সাময়িক প্রবর্তক বলে।

শুধুমাত্র সাময়িকভাবে কোম্পানি প্রবর্তনের দায়িত্ব গ্রহণ করাই এ শ্রেণির প্রবর্তকের কাজ।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ